ওয়েব হোস্টিং

শেয়ার্ড হোস্টিং ও ক্লাউড হোস্টিং এর পার্থক্য কি?

শেয়ার্ড ও ক্লাউড হোস্টিং এর পার্থক্য বোঝার আগে জানতে হবে শেয়ার্ড ও ক্লাউড হোস্টিং কাকে বলে?

শেয়ার্ড হোস্টিং কাকে বলে?

শেয়ার অর্থ কারো সাথে কিছু শেয়ার করা, একটি সার্ভার কম্পিউটার যখন একাধিক ব্যবহাকারী ওয়েব হোস্টিং এর জন্য ব্যবহার করেন তখন একে শেয়ার্ড হোস্টিং (shared hosting) বলা হয়, কারণ তারা একটি সার্ভার কম্পিউটার পরস্পরের সাথে শেয়ার করে ব্যবহার করলো।

ক্লাউড হোস্টিং কাকে বলে?

অপরপক্ষে যখন একাধিক সার্ভার কম্পিউটার পরস্পরের সাথে সংযুক্ত করে একটি সম্মিলিত শক্তির সার্ভার সিস্টেম (ক্লাউড সার্ভার ) তৈরি করা হয় এবং ব্যবহারকারীগণ তাতে ওয়েব হোস্টিং করেন তখন তাকে ক্লাউড হোস্টিং বলা হয়।

ক্লাউড ও শেয়ার্ড হোস্টিং এর মধ্যে কোনটি বেশি গ্রহনযোগ্য?

নির্দ্বিধায় ক্লাউড সার্ভার কারণ, একজন বা সবার জন্যে শেয়ার্ড সার্ভার ওভারলোড হয়ে গেলে পুরো সার্ভার ডাউন হয়ে যেতে পারে, সেক্ষেত্রে সবার সাইট ডাউন হয়ে যাবে, অপরদিকে ক্লাউড সার্ভার যেহেতু একাধিক সার্ভারের সম্মিলিত শক্তি (Chain of multiple servers) তাই একজনের কারণে যদি সার্ভার ওভারলোড হয়ে যায় তাহলে ক্লাউডের অন্য সার্ভারগুলো ওভারলোডেড সার্ভারটির লোড শেয়ার করে নিয়ে পুরো সিস্টেমকে ডাউন হওয়া থেকে বাঁচিয়ে রাখে। আর সার্ভার আপ টাইম যেহেতু সবার জন্যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তাই ওয়েব হোস্টিং এর জন্যে ক্লাউড সার্ভারই বেশি গ্রহনযোগ্য। ভবিষ্যত ক্লাউড সার্ভারের, আগামীতে হয়তো সাধারণ সাধারণ শেয়ার্ড হোস্টিং লুপ্ত হয়ে তার স্থানে ক্লাউড সার্ভার শেয়ারিং আরো জনপ্রিয় হয়ে উঠবে।

Back to list